fbpx
মুসাফিরের নামায

প্রশ্ন : মেরিন ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে আমাকে জাহাজে কখনো ১ বছর বা তারও বেশী একটানা জাহাজে অবস্থান করতে হয়। জাহাজও বিভিন্ন দেশের উপর দিয়ে চলমান থাকে। এমতাবস্থায় ছালাত জমা ও ক্বছর করা এবং সুন্নাত ছালাত পরিত্যাগ করার ব্যাপারে শরী‘আতের বিধান কি?

উত্তর : এমতাবস্থায় ছালাত কছর করা যাবে। তবে ছালাত জমা‘ তাকদীম বা তাখীর তখনই করা
উত্তম হবে যখন যথা সময়ে ছালাত আদায়ের সুযোগ পাবে না। কারণ আল্লাহ ছালাতের জন্য সময় নির্ধারণ করে দিয়েছেন (নিসা ৪/১০৩; উছায়মীন, আশ-শারহুল মুমতে‘ ৪/৩৭০; বিন বায, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ১২/২৮১-২৮২)

সামুদ্রিক সফরে এক বছর অবস্থান করলেও ছালাত কছর করতে পারবে। ইমাম তিরমিযী (রহঃ) বলেন, আলেমগণ এই বিষয়ে একমত যে, যতদিন পর্যন্ত ইকামত বা নির্দিষ্ট জায়গায় অবস্থানের সিদ্ধান্ত না নিবে, ততদিন একজন মুসাফির কছর আদায় করবে। যদিও এভাবে বহু বছর কেটে যায় (তিরমিযী হা/৫৪৮-এর আলোচনা দ্রষ্টব্য)

আব্দুল্লাহ বিন ওমর (রাঃ) আযারবাইজান সফরে গেলে পুরো বরফের মৌসুম সেখানে আটকে যান ও ছয় মাস যাবৎ কছর করেন (বায়হাক্বী ৩/১৫২ পৃঃ; ইরওয়া হা/৫৭৭, সনদ ছহীহ)

অনুরূপভাবে হযরত আনাস (রাঃ) শাম বা সিরিয়া সফরে গিয়ে দু’বছর সেখানে থাকেন ও কছর করেন (ফিক্বহুস সুন্নাহ ১/২৮৬ পৃ.; মিরক্বাত ৩/২১১ পৃঃ)

সুতরাং স্থায়ী মুসাফির যেমন জাহায, বিমান, ট্রেন, বাস ইত্যাদির চালক ও কর্মচারীগণ সফর অবস্থায় সর্বদা ছালাতে কছর করতে পারেন (ছালাতুর রাসূল (ছাঃ) ১৮৭ পৃঃ)

তবে মনে রাখতে হবে যে, ক্বছর করা ওয়াজিব নয়। কিন্তু রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) এবং অধিকাংশ ছাহাবী সর্বদা ক্বছরকেই অগ্রাধিকার দিতেন (ইবনু তায়মিয়াহ, মাজমূ‘ ফাতাওয়া ২৪/৯৮; ফিক্বহুস সুন্নাহ ১/২১২)

সূত্র: মাসিক আত-তাহরীক।

➥ লিংকটি কপি অথবা প্রিন্ট করে শেয়ার করুন:
পুরোটা দেখুন

Mahmud Ibn Shahid Ullah

"যে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেয়, সৎকর্ম করে এবং বলে, আমি একজন মুসলিম, তার কথা অপেক্ষা উত্তম কথা আর কার?" আমি একজন তালিবুল ইলম। আমি নিজেকে ভুলের উর্ধ্বে মনে করি না এবং আমিই হক্ব বাকি সবাই বাতিল এমনও ভাবিনা। অতএব, আমার দ্বারা ভুলত্রুটি হলে নাসীহা প্রদানের জন্যে অনুরোধ রইল। ❛❛যখন দেখবেন বাত্বিল আপনার উপর সন্তুষ্ট, তখন বুঝে নিবেন আপনি ক্রমের হক্ব থেকে বক্রপথে ধবিত হচ্ছেন।❞

এই বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত অন্যান্য লিখা

Back to top button