fbpx
প্রশ্নোত্তর

প্রশ্ন : ইয়া নবী বলা যদি বেয়াদবী হিসাবে গণ্য হয়, তবে ইয়া আল্লাহ, ইয়া মালিক বলার ক্ষেত্রেও কি একইভাবে বেয়াদবী হবে?

উত্তর : ইয়া রাসূল বা ইয়া নবী কেবল রাসূল (ছাঃ)-কে সালাম দেওয়ার ক্ষেত্রে বলা যাবে। চাওয়া, প্রার্থনা বা অন্য কোন উদ্দেশ্যে এই আহবান করা যাবে না। কারণ তিনি এখন মৃত (ইবনু তায়মিয়াহ, মাজমূ‘উল ফাতাওয়া ১/১২৪; বিন বায, ফাতাওয়া নূরুন ‘আলাদ দারব)

আর আল্লাহ সর্বদা জীবিত বা চিরঞ্জীব, সর্বশ্রোতা বা সর্বদ্রষ্টা। সেজন্য দো‘আয় হে আল্লাহ বা ইয়া আল্লাহ বলা যাবে (বুখারী হা/৩৩৫০, ৪৭১২; মিশকাত হা/৫৫৩৮)

তবে দো‘আর ক্ষেত্রে ‘ইয়া’র পরিবর্তে ব্যাপক অর্থবোধক শব্দ আল্লা-হুম্মা বা রববানা শব্দে দো‘আ করা উত্তম (ইবনুল ক্বাইয়িম, জালাউল আফহাম ১/১৫৩-৫৪; খাত্ত্বাবী, মা‘আলিমুস সুনান ২/৩৩০)

সূত্র: মাসিক আত-তাহরীক।

➥ লিংকটি কপি অথবা প্রিন্ট করে শেয়ার করুন:
পুরোটা দেখুন

Mahmud Ibn Shahid Ullah

"যে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেয়, সৎকর্ম করে এবং বলে, আমি একজন মুসলিম, তার কথা অপেক্ষা উত্তম কথা আর কার?" আমি একজন তালিবুল ইলম। আমি নিজেকে ভুলের উর্ধ্বে মনে করি না এবং আমিই হক্ব বাকি সবাই বাতিল এমনও ভাবিনা। অতএব, আমার দ্বারা ভুলত্রুটি হলে নাসীহা প্রদানের জন্যে অনুরোধ রইল। ❛❛যখন দেখবেন বাত্বিল আপনার উপর সন্তুষ্ট, তখন বুঝে নিবেন আপনি ক্রমের হক্ব থেকে বক্রপথে ধবিত হচ্ছেন।❞

এই বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত অন্যান্য লিখা

Back to top button