প্রশ্নোত্তরে ফিকহুল ইবাদাতসালাত / নামায

ইস্তিখারার সালাত কাকে বলে?

 

ব্যবসা-বাণিজ্যের সিদ্ধান্ত নেওয়া, বিয়ের পাত্র-পাত্রী বাছাই, ঘর-বাড়ি নির্মাণ, কোন জমি-জমা ক্রয়-বিক্রয়, কোন চাকরিতে যোগদান বা পদত্যাগ করা ইত্যাকার জায়েয বিষয়ে কোনটি করা সঠিক হবে এ বিষয়ে যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও মনস্থির করার জন্য দু’রাকআত নফল সালাত আদায় করে নির্ধারিত দু’আ পড়া- এ সালাতকে ‘সলাতুল ইস্তিখারা’ অর্থাৎ ইস্তিখারার সালাত বলা হয়। ইস্তিখারা অর্থ কল্যাণ কামনা। কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে মাঝে-মধ্যে মানুষ দ্বিধা-দ্বন্ধে ভােগে, কাজটি করবে কি করবে না, কোনটা করলে ভালো হয়, কারো পরামর্শ নিলে সেখানে ভুল ও থাকতে পারে বা কুমতলবে কেউ খারাপ পরামর্শও দিতে পারে- এসব অবস্থার সমাধানে সরাসরি আল্লাহ্‌র কাছ থেকে কল্যাণ প্রাপ্তির আশায় ইস্তিখারার’ সালাত আদায় হলো সর্বোত্তম কাজ

‘ইস্তিখারার জন্য রাসূলুল্লাহ (স.) এত গুরুত্ব দিতেন যাতে মনে হতো যে, কুরআন শিক্ষার জন্য তিনি তালীম দিচ্ছেন। ইস্তিখারার পর মন যেদিকে টানবে, সেটাই করবে। আর এরই মধ্যে রয়েছে কল্যাণ ও রহমত ইনশা আল্লাহ। স্বপ্নের মাধ্যমে ইঙ্গিত প্রাপ্তির জন্য অপেক্ষা করা লাগবে না। এ বিষয়ে স্বপ্ন দেখাও জরুরি নয়।

 

সূত্র: প্রশ্নোত্তরে ফিকহুল ইবাদাত
লেখক: অধ্যাপক মোঃ নূরুল ইসলাম

➥ লিংকটি কপি অথবা প্রিন্ট করে শেয়ার করুন:
পুরোটা দেখুন

হাবিব বিন তোফাজ্জল

❝আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি আল্লাহ ছাড়া কোনাে সত্য ইলাহ নেই , এবং মুহাম্মাদ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার বান্দা ও রাসূল।❞ আমি একজন তালিবুল ইলম ও ফ্রিল্যান্সার। আমি নিজেকে ভুলের উর্ধে মনে করি না এবং আমিই হ্বক বাকি সবাই বাতিল তেমনটাও মনে করিনা। অতএব, ভুলত্রুটি হলে নাসীহা প্রদানের জন্যে অনুরোধ রইল। ― আমাদের পূর্বের সালাফেরা যেসকল বিষয়ে বাড়াবাড়ি ও ছাড়াছাড়ি করেছেন সেসকল বিষয়ে আমি তাদের অনুসরণকারী।

এই বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত অন্যান্য লিখা

Back to top button