সালাত / নামায

প্রশ্ন : কেউ কেউ বলেন, দিন ও রাতে সতের রাক‘আত ফরয ছালাত ইজমা দ্বারা প্রমাণিত, হাদীছ দ্বারা নয়। এর সত্যতা জানতে চাই।

 

উত্তর : দিন ও রাতে ফরয ছালাত সতের রাক‘আত অর্থাৎ যোহরের চার, আছরের চার, এশার
চার, মাগরিবের তিন ও ফজরের দুই।

আয়েশা (রাঃ) বলেন, আল্ল­াহ তা‘আলা মুক্বীম
অবস্থায় ও সফরে দু’রাক‘আত করে ছালাত ফরয করেছিলেন। পরে সফরের ছালাত আগের মত
রাখা হয় আর মুক্বীম অবস্থার ছালাত বাড়িয়ে দেয়া হয় (বুখারী হা/৩৯৩৫; মুসলিম হা/৬৮৫; মিশকাত হা/১৩৪৮)

অন্য বর্ণনায় এসেছে, প্রথমে দু’দু’ রাক‘আত করে ছালাত ফরয করা হয়েছিল। যখন রাসূল (ছাঃ) মদীনায় গমন করলেন ও স্থির হ’লেন তখন মাগরিব ও ফজর ব্যতীত অন্য ওয়াক্তের ছালাতে দু’দু’ রাক‘আত করে বৃদ্ধি করে চার রাক‘আত করা হ’ল। মাগরিবে
করা হয়নি তার কারণ সেটি বেজোড়। আর ফজরে করা হয়নি কারণ তাতে দীর্ঘ তেলাওয়াত
রয়েছে (বায়হাক্বী ১/৫৩৩, হা/১৬৯৮ সনদ হাসান)

অতএব দিনে-রাতে ১৭ রাক‘আত ফরয ছালাত ছহীহ হাদীছ সমূহ দ্বারা প্রমাণিত (ছহীহ ইবনু খুযায়মা ‘ছালাত’ অধ্যায়, ২ অনুচ্ছেদ; নাসাঈ ‘ছালাত’ অধ্যায়-৫, অনুচ্ছেদ-৩; দ্র. ছালাতুর রাসূল (ছাঃ) পৃ. ৩০)

 

সূত্র: মাসিক আত-তাহরীক।

➥ লিংকটি কপি অথবা প্রিন্ট করে শেয়ার করুন:
পুরোটা দেখুন

Mahmud Ibn Shahid Ullah

"যে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেয়, সৎকর্ম করে এবং বলে, আমি একজন মুসলিম, তার কথা অপেক্ষা উত্তম কথা আর কার?" আমি একজন তালিবুল ইলম। আমি নিজেকে ভুলের উর্ধ্বে মনে করি না এবং আমিই হক্ব বাকি সবাই বাতিল এমনও ভাবিনা। অতএব, আমার দ্বারা ভুলত্রুটি হলে নাসীহা প্রদানের জন্যে অনুরোধ রইল। ❛❛যখন দেখবেন বাত্বিল আপনার উপর সন্তুষ্ট, তখন বুঝে নিবেন আপনি ক্রমের হক্ব থেকে বক্রপথে ধবিত হচ্ছেন।❞

এই বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত অন্যান্য লিখা

Back to top button