নাম – উপনাম ও উপাধি

আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : ছাহাবীগণের নামে সন্তানের নাম রাখা যাবে কি? যদি অর্থগতভাবে তা পছন্দনীয় না হয়?

উত্তর : ছাহাবীগণের নামে সন্তানের নাম রাখা যাবে। বরং নবী-রাসূল ও সৎ বান্দাদের নামে নাম রাখা মুস্তাহাব। রাসূল (ছাঃ) নিজ…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : আরব দেশে নামের সাথে পিতা এমনকি দাদার নাম যোগ করা হয়। কিন্তু আমাদের দেশে এর প্রচলন নেই। এর কারণ কি? কিভাবে নাম রাখা উত্তম?

উত্তর : ইসলামী শরী‘আতে নসবনামা বা বংশ তালিকা সংরক্ষণের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে (তিরমিযী হা/১৯৭৯; মিশকাত হা/৪৯৩৪; ছহীহুত তারগীব হা/২৫২০)। সেকারণ…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : সন্তানের নাম রাখার ক্ষেত্রে পিতা না মাতার সিদ্ধান্ত অগ্রাধিকার পাবে?

উত্তর : সন্তানের নাম রাখার ক্ষেত্রে পিতা ও মাতা উভয়ে পরামর্শ করবে। যদি সন্তানের নাম রাখার ব্যাপারে পিতা ও মাতার…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : নামের সাথে ছিদ্দীক উপাধি লাগানো যাবে কি?

উত্তর : ছিদ্দীক অর্থ মহাসত্যবাদী। এতে তাযকিয়া তথা অধিক প্রশংসাসূচক অর্থ রয়েছে। এই ধরনের অতি প্রশংসাসূচক নাম রাখা অপসন্দনীয়। তবে…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : আল্লাহ তা‘আলার গুণবাচক নাম কি ৯৯টি নাকি আরও বেশী?

উত্তর : না, নির্ধারিত ৯৯টি নাম নয়; বরং বিদ্বানগণ পবিত্র কুরআন ও হাদীছ সমূহ থেকে আল্লাহর দুই শতাধিক গুণবাচক বা…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : কোন মেয়ের নাম যুনায়রাহ রাখা যাবে কী?

উত্তর : যুনায়রাহ-এর মূল উচ্চারণ যুন্নায়রাহ। যা আরবী শব্দ। এর অর্থ দীর্ঘ ও বিশালদেহী নারী, ছোট মাছি, ছোট পাথর ইত্যাদি…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : হালীমা, সালমা, রহীমা ইত্যাদি নাম রাখার বিধান কী? এগুলি আল্লাহর গুণবাচক নাম কি?

উত্তর : আল্লাহর নামসমূহ সর্বদা পুংলিঙ্গ। স্ত্রীলিঙ্গে আল্লাহর কোন নাম নেই। সুতরাং এসব নাম রাখায় কোন বাধা নেই। উল্লেখ্য যে,…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : কোন মানুষের নাম রববানী রাখা যাবে কি? এছাড়া কাউকে নাম হিসাবে রাববী বলে ডাকা যাবে কি?

উত্তর : ‘রববানী’ নাম রাখাতে কোন বাধা নেই। কারণ ‘রববানী’ অর্থ আল্লাহওয়ালা। তবে ‘গোলাম রববানী’ নাম রাখা যাবে না। কেননা…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : নামের শেষে অনেকে জিহাদী, ইউসুফী, ফারুকী, ছিদ্দীক্বী, আনছারী, কুরায়শী যুক্ত করেন, যা তার মূল নামের অংশ নয়। বিষয়টি কতটুকু শরী‘আতসম্মত?

উত্তর : পরবর্তীতে এরূপ পদবী না রাখা উচিৎ। কারণ রাসূল (ছাঃ) বলেন, ‘তোমরা আত্মপ্রশংসা করো না। তোমাদের মধ্যে কে সর্বাধিক…

আরও পড়ুন ➲
আদব ও শিষ্টাচার

প্রশ্ন : নারীদের নাম হিসাবে কানীয ফাতেমা রাখা যাবে কি? এর অর্থ কি?

উত্তর : কানীয শব্দটি ফার্সী (كنيز)। যার অর্থ বাঁদী, দাসী প্রভৃতি। সুতরাং আল্লাহর বান্দী অর্থে কানীয নাম রাখা যায়। তবে…

আরও পড়ুন ➲
Back to top button